shubhobangladesh

সত্য-সুন্দর সুখ-স্বপ্ন-সম্ভাবনা সবসময়…

মুকুন্দ

Mukunda
Mukunda

মুকুন্দ

সুনীল শর্মাচার্য

মুকুন্দ

মুকুন্দ বাড়ির উঠোনে অনেক রকমের ফুল গাছ লাগিয়েছে। কিন্তু সেইসব ফুলের গাছে কখনো কোনো ফুল হয় না। বড় হওয়ার আগেই সব গাছ নষ্ট হয়ে যায়। নয় তো ছাগলে, গরুতে খায়।

বেড়া দিয়েও তা রক্ষা করা তার পক্ষে সম্ভব ছিল না। কারণ দিনের বেশিরভাগ সময় মুকুন্দকে বাজারে থাকতে হয়। বাজারে তার একটা মিষ্টির দোকান আছে।

ছোট জায়গা। বেশি বিক্রি হয় না। একবার কেউ মিষ্টি কিনলে, সে আর দ্বিতীয়বার মুকুন্দের দোকানে আসত না!

একা একা বসে থাকলে মুকুন্দ ভাবতো—কেন এমন হয়? অথচ বাজারে যে-কয়টা মিষ্টির দোকান আছে তা বেশ চলে।

মুকুন্দ ফুলের সঙ্গে মিলিয়ে মিষ্টির দোকানের নাম রেখেছে ‘গন্ধরাজ’। কারণ সে ফুল ভালোবাসে। মিষ্টি ভালোবাসে। কিন্তু তার সঙ্গে কেউ মিষ্টি কথা বলে না। কচি কচি ছেলে-মেয়েরা তাকে দেখলে ভয়ে পালায়। কেন যে পালায়, সে জানে না!

লোকজন বলাবলি করে : মুকুন্দর চেহারার মধ্যে নাকি একটা দৈত্য দেখতে পাওয়া যায়। সে দৈত্য

রাতে ঘোরাফেরা করে।

আর এই চেহারার জন্য তার ঘরে কেউ এলো না। বাড়িতে ফুলের সঙ্গে বসবাস করবে ভেবে ফুল লাগিয়েও, ফুল পেল না।

তার মনের মধ্যে ভীষণ দুঃখ! এই দুঃখের কথা বলবার মতো কোনো মনের মানুষ নেই। ফলে মুকুন্দ নদীর কাছে যায়।

নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে ফ্যাল ফ্যাল করে নদীর জলে তাকিয়ে থাকে—ঘণ্টার পর ঘণ্টা!

একসময় মুকুন্দর চোখ নদীর জলের সঙ্গে এক হয়ে সাগরের দিকে চলে যায়!

…………………

পড়ুন

কবিতা

সুনীল শর্মাচার্যের একগুচ্ছ কবিতা

সুনীল শর্মাচার্যের ক্ষুধাগুচ্ছ

লকডাউনগুচ্ছ : সুনীল শর্মাচার্য

সুনীল শর্মাচার্যের গ্রাম্য স্মৃতি

নিহিত মর্মকথা : সুনীল শর্মাচার্য

প্রয়াণগাথা : সুনীল শর্মাচার্য

সুনীল শর্মাচার্যের কবিতাগুচ্ছ

অন্যভুবনের কবিতা

ঘোড়া : সুনীল শর্মাচার্য

মুক্তপদ্য

ভারতীয় কোলাজ

ইচিং বিচিং পদ্য : সুনীল শর্মাচার্য

গল্প

উকিল ডাকাত : সুনীল শর্মাচার্য

এক সমাজবিরোধী ও টেলিফোনের গল্প : সুনীল শর্মাচার্য

আঁধার বদলায় : সুনীল শর্মাচার্য

মুকুন্দ

প্রবন্ধ

কবির ভাষা, কবিতার ভাষা : সুনীল শর্মাচার্য

ধর্ম নিয়ে : সুনীল শর্মাচার্য

মতামত

ভারতীয় বাঙালি ও ভাষাদিবস

ভারতীয় বাম ও তাদের কিচ্ছা

মুক্তগদ্য

খুচরো কথা চারপাশে : সুনীল শর্মাচার্য

কত রকম সমস্যার মধ্যে থাকি

শক্তি পূজোর চিরাচরিত

ভূতের গল্প

বেগুনে আগুন

পরকীয়া প্রেমের রোমান্স

মুসলমান বাঙালির নামকরণ নিয়ে

এখন লিটল ম্যাগাজিন

যদিও সংকট এখন

খাবারে রঙ

সংস্কার নিয়ে

খেজুর রসের রকমারি

‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ পাঠ্যান্তে

মোবাইল সমাচার

ভালো কবিতা, মন্দ কবিতা

ভারতের কৃষিবিল যেন আলাদিনের চেরাগ-এ-জিন

বাঙালিদের বাংলা চর্চা : খণ্ড ভারতে

দাড়ি-গোঁফ নামচা

নস্যি নিয়ে দু-চার কথা

শীত ভাবনা

উশ্চারণ বিভ্রাট

কাঠঠোকরার খোঁজে নাসা

ভারতীয় ঘুষের কেত্তন

পায়রার সংসার

রবীন্দ্রনাথ এখন

কামতাপুরি ভাষা নিয়ে

আত্মসংকট থেকে

মিসেস আইয়ার

ফিরবে না, সে ফিরবে না

২০২১-শের কাছে প্রার্থনা

ভারতে চীনা দ্রব্য বয়কট : বিষয়টা হাল্কা ভাবলেও, সমস্যাটা কঠিন এবং আমরা

রাজনীতি বোঝো, অর্থনীতি বোঝো! বনাম ভারতের যুবসমাজ

কবিতায় ‘আমি’

ভারতে শুধু অমর্ত্য সেন নয়, বাঙালি সংস্কৃতি আক্রান্ত

ধুতি হারালো তার কৌলীন্য

ভারতের CAA NRC নিয়ে দু’চার কথা

পৌষ পার্বণ নিয়ে

প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে

শ্রী শ্রী হক কথা

বর্তমান ভারত

ভারতের এবারের বাজেট আসলে অশ্বডিম্ব, না ঘরকা না ঘাটকা, শুধু কর্পোরেট কা

ইন্ডিয়া ইউনাইটেড বনাম সেলিব্রিটিদের শানে-নজুল

ডায়েরির ছেঁড়া পাতা

অহল্যার প্রতি

উদ্ভট মানুষের চিৎপাত চিন্তা

তাহারা অদ্ভুত লোক

পৌর্বাপর্য চিন্তা-ভাবনা

নিহিত কথামালা

অবিভাজ্য আগুন

পাথরের মতো মৌন জিজ্ঞাসা

ভাবনা যত আনমনে

বিবেক পোড়ে অশান্ত অনলে

কালাকালের ডায়েরি

উন্মাদের নীতিকথা

করোনা, ভারতীয় জনগণ ও তার সমস্যা

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন...