shubhobangladesh

সত্য-সুন্দর সুখ-স্বপ্ন-সম্ভাবনা সবসময়…

বাসব রায়ের চারটি ছড়া

Basob Roy
Basob Roy

চারটি ছড়া

বাসব রায়

বাসব রায়ের চারটি ছড়া

প্রেম ঘোড়ারোগ

বড়লোক যারা……… প্রেম করে তারা

গরীবের তাতে কী—

ছোটলোক তোরা……… মুখচোখ পোড়া

পান্তায় খাস ঘি৷

.

যার আছে গাড়ি……… সুন্দর বাড়ি

প্রেম সেদিকেই ছুটে

রঙচটা দেহ……… অদ্ভুত গেঁয়ো

কপালে গোবর ঘুঁটে৷

.

শখ আছে বটে……… প্রেম যানজটে

ফিটফাট বডি চায়

বাজে গোঁফদাড়ি……… ভাঙা ঘরবাড়ি

পড়শীরা করে হায়!

.

হোক মন তার……… যতই উদার

দারুণ প্রেমসাগর

ওপরের তলা……… যতো হোক ঘোলা

সেখানেই প্রেমাদর৷

.

চল ভাই চল……… থামা টলমল

এখানে ওসব মানা

ওঁদের হাত বড়……… তোরা জড়সড়

তোদেরটা সব জানা৷

.

ফাও জীবন

মন খারাপের দেশে আমার

মন পবনের নাও

বনবাদাড়ে ছুটে বেড়ায়

গোটা জীবন ফাও৷

.

প্রেম ছিল এক ঝটকামারি

বায়না শত শত

ঠোঁট ভরা তার মুচকি হাসি

দেখতে রাধার মতো৷

.

এখান সেখান ঘোরাঘুরি

নেই পিছুটান নেই

হারিয়ে গেছে আমার রাধা

কালা এলো যেই৷

.

বাউল হবো না কবি হবো

ভাবতে জীবন গেল—

কার কাছে বা করব নালিশ

সব ব্যাটারাই কেলো৷

.

ভাঙা নাওয়ে ভাটির টানে

চলছি ভেসে ভেসে

ষোলআনার জীবন নাটক

কাটলো কেশে শেষে৷

.

বসন্ত কাব্য

শেষ ফাল্গুন……… জাগায়ে আগুন

……… চৈত্রের পথে ধায়

আলোড়ন তুলে……… শিহরণ ভুলে

……… পেছনের দিকে চায়।

.

বসন্ত বাতাস……… দিয়ে আশ্বাস

……… সুদূর সন্মুখে ডাকে

গাছের ছায়ায়……… অজানা মায়ায়

……… খেলে রৌদ্রের ফাঁকে।

.

রোদে ঝিলমিল……… হাসে খিলখিল

……… কিশোরী ওখানে ওই

মাটির গন্ধে……… সকাল সন্ধ্যে

……… মিলেছে সকল সই।

.

করে খুনসুটি……… হেসে লুটোপুটি

……… মাটিতে অঙ্গ মাখি

খুশিতে পাগল……… শুধু কলরোল

……… দোলে ফুলবনে শাখি।

.

বালকেরা বুঝি……… বেড়িয়েছে খুঁজি

……… সঙ্গী সাথীর দল

শুধু সারাবেলা……… দলবেঁধে খেলা

……… মিছে পড়ালেখা ছল।

.

নৌকার পালে……… ধীবরের জালে

……… জীবনের ছবি আঁকা

মুকুল বাহারে……… শোভা আহারে

……… রাখালের বাঁশি বাঁকা।

.

মাঠে কৃষকেরা……… সবুজে ঘেরা

……… বুকভরা আশা নিয়ে

কিষাণীর বুকে……… স্বপ্নের সুখে

……… সুধা দেয় মিশিয়ে।

.

কুমার-কামার……… নাপিত-চামাড়

……… একই সাথে মিলেমিশে

একই আকাশে……… একই বাতাসে

……… একই দোয়েলের শিষে।

.

শেষ কথাটি

সময় হলো এই প্রভাতেই

ডুববে বুঝি বেলা

শেষ হলো তাই রঙের মেলা

সারাদিনের খেলা৷

.

ফাগুনের এই ধুলোর ঝড়ে

মলিন চোখে জল

প্রিয়ার বুকে পাথরচাপা

শিশির টলমল৷

.

এইতো সেদিন এমনই ভোরে

মায়ের ব্যথার হাসি

সবার মনটা খুশি খুশি

কপালগুণে রাশি৷

.

গল্পে গল্পে হেলেদুলে

সকাল বিকেল গেল

সন্ধ্যাশেষে কঠিন সে রাত

ভোরের কাছে এলো৷

.

শেষ হয়েও হলোই না শেষ

শেষ কথাটি বলা

একটু সময় না-হয় দিতেই

থামতো কী সব চলা!

…………………

পড়ুন

কবিতা

বাসব রায়ের চারটি কবিতা

ছড়া

বাসব রায়ের চারটি ছড়া

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন...