shubhobangladesh

সত্য-সুন্দর সুখ-স্বপ্ন-সম্ভাবনা সবসময়…

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৪র্থ পর্ব

Little Magazine
Little Magazine

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৪র্থ পর্ব

জ্যোতি পোদ্দার

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৪র্থ পর্ব

দুই

সময় ১৯৭১। বাংলা ও বাঙালির এক অগ্নিগর্ভ কাল। একুশে সংকলন ‘রক্তের স্বাক্ষর’। রেজাউল ইসলামের প্রযত্নে শেরপুর মহাবিদ্যালয় ছাত্র সংসদের স্মরণিকা।

কাঠ খোদায়ের প্রচ্ছদ করেছেন হাবিবুর রহমান। স্থানিক পর্যায়ে কাঠ খোদাই কাজ এটিই প্রথম। পরবর্তী সময়ে বিজন কর্মকার চমৎকার কাঠ খোদাই প্রচ্ছদ বিভিন্ন স্মরণিকায় প্রচ্ছদ হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে।

১৯৭১ সালে ‘রক্তের স্বাক্ষর’ ছাড়া অন্য কোনো ছোটকাগজ শেরপুরে প্রকাশিত হয়নি। এই সাল বাঙালির স্বাধীকার আন্দোলনে জীবনবাজির রক্তবর্ষ। ছাত্র সংসদের নেতৃবৃন্দ ঠিক নামেই সংকলিত করেছেন ‘রক্তের স্বাক্ষর’। রক্তের স্বাক্ষরেই আমাদের এই বাংলাদেশ।

এই সংকলনে প্রবন্ধ লিখেছেন—নিত্যলাল বনিক, সংগ্রাম চক্রবর্তী। গল্পে—আখতারুজ্জামান, সুভাষ চন্দ্র ও রেজাউল ইসলাম। কবিতা লিখেছেন—জায়েদা খাতুন, আহসান হাবীব শ্যামল আর দুলাল দে বিপ্লব।

‘কাল বৈশাখীর ঝড় দেখছ! কাল বৈশাখীর ঝড়?

বাতাসে উড়েছিল গো কত জীবনের স্বর।

ঘর আমার, তবুও আমরা নইকো ঘরের স্বামী

কতকাল আর দেখবো বল ওদের ষণ্ডামী।

(একুশের ছড়া : উদয় শংকর রতন)

১৯৭২ সালে শেরপুর মহাবিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত হয় ‘ওরা মরনজয়ী’। শফিকুর রহমানের সম্পাদনায়। স্বাধীনতার পর এটিই প্রথম স্মরণিকা। সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান লিখেছেন—

ও আমারও ভাই ছিল

আমি বেঁচেই আছি

স্বাধীনতার মুক্ত বাতাসে

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে

শৃংখল মুক্ত বীর জনতার মাঝে।

(ভাই বুলবুল)

পরবর্তী বছর একুশে সংকলন ‘ওরা মরণজয়ী’ বের হয় আহসান হাবীব শ্যামলের ম্পাদনায়। লিখেছেন—সংগ্রাম চক্রবর্তী, সুভাষ চন্দ্র বাদল, তালাপতুফ হোসেন মঞ্জু, শাহানা পারভীন মিনা ও আবদুস সোবহান।

‘স্পন্দিত শোনিত’ (১৯৭৩) একুশের সংকলন। ভাষার মাস ও স্মরণিকা প্রকাশের চর্চা নিয়ে চমৎকার নিবন্ধ লিখেছেন অধ্যক্ষ সৈয়দ আবদুল হান্নান। এই সংসদের ভি পি মুহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ লিখেছেন, ‘মুক্তির অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছাবার জন্য বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে গণতন্ত্রের মাধ্যমে সমাজতন্ত্রে উত্তরণ করে ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশ গঠন করতে হবে।’

এই সংখ্যায় আরো লিখেছেন—দিপ্তি কনা সাহা, রাবিউল রহমান, আক্তারুজ্জামান, নিত্যলাল বনিক প্রমুখ। সস্পাদক সংগ্রাম চক্রবর্তী লিখেছেন, ‘মহান ভাষা আন্দোলন ও আমাদের সাহিত্য সংস্কৃতি’ বিষয়ক চমৎকার প্রবন্ধ। তিনি স্বাধীনতার পূর্বাপর শেরপুরে কবিতা ও প্রবন্ধে নিজস্ব স্বাক্ষর রেখেছেন।

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৪র্থ পর্ব

‘অগ্রনী’ (১৯৭৩) সম্পাদক তপন সেন। ছাত্র ইউনিয়নের কর্মী। মেধাবী ছাত্র। ইউনিয়নের ঘরনায় তপনের নিজস্ব কাগজ। এক ফর্মার কাগজ। নিউজ প্রিন্টে ছাপা; সালমা প্রিন্টিং ওয়ার্কস, নিউ মার্কেট শেরপুর থেকে।

সস্পাদক লিখেছেন, ‘আমাদের চেতনার দৃঢ়তায় যে সন্মিলন মুক্তির, সমাজতন্ত্রের এবং দেশকে গড়ে তোলার—সেই মহতী আদর্শকে বাস্তবায়নের বজ্র শপথ নিয়ে সংগ্রামী ছাত্র সমাজ এবং দেশবাসীকে ঐক্যের আহ্বান জানাচ্ছি।’

নববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রকাশিত অগ্রণীতে লিখেছেন—আব্দুর রশিদ খান, খন্দকার আবুল কাশেম, নূরল ইসলাম হিরু, সুফিয়া খাতুন ও দুলাল দে বিপ্লব।

‘আমার সবুজ আত্মা ভাগ হয়ে যায়

মানচিত্রে অনেক রক্ত

ছোপ ছোপ

মাতৃ হত্যার নিষ্ঠুর মহড়ায়’

(আমার সবুজ আত্মা : তপন সেন)

(চলবে)

…………………

পড়ুন

কবিতা

রাংটিয়া সিরিজ : জ্যোতি পোদ্দার

তিলফুল : জ্যোতি পোদ্দার

জ্যোতি পোদ্দারের কবিতা

প্রবন্ধ-গবেষণা

টাউন শেরপুরে প্রথম রবীন্দ্রজয়ন্তী

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ২য় পর্ব

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৩য় পর্ব

শেরপুরে ছোটকাগজ চর্চা – ৪র্থ পর্ব

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন...